“বন মর্মরের চিঠি ৩” — মুসা কামাল ।।

6
402

মঈন ,
তুই চলে যাবার আজ সাত দিন হয়ে গেল !
আমাদের তুই দেখতেই পারছিস,বেশ ভাল বুঝি আমি ।
মনটা খারাপ,অনেক খারাপ । সকলের ।
সবাই নীরবে দু চোখের পানি ফেলছে অঝোর ধারায় । আমি জানি ।
কেউ বলে কেউ বলে না ।
তোর”বন মর্মরের চিঠিটা”আজ আমি লিখছি । লিখতেই পারি !
তোর কোন বিষয়ে আমরা কেউ কোনদিন ঢুকি নাই ! এটায় ঢুকলাম । বুঝতে পেরেছিস নিশ্চয়ই, কেন ?
তোর “বন মর্মরের চিঠি এক আর দুই” যে তুই আমাকে লিখেছিলি !
আমি শুধু পোস্ট দেবার সময় আমাকে সম্বোধন করা ” তুই” টাকে “তুমি” করে দিয়েছিলাম , যাতে কেউ বুঝতে না পারে !
দুই একজন বুঝেছিল বুঝিবা ! কেননা ” খাটাস ” বলে তোকে আমি ডাকতাম ।
” তুই কে তুমি” করেছি-তুই জেনে হাসলি । বললি – অক্টোপাস সম্পাদক?
কি জানি কেন এমন নাম বলেছিলি। এক্সপ্লানেসন দরকার ছিল !ভেবেছিলাম পরে শুনে নেব !
তা আর হোল কই ?
Whats APP ঘেঁটেছি । তোকে আমি শেষ ম্যাসেজ টা দিয়েছিলাম ২ তারিখ । রাতেই হবে। বলেছিলাম – লেখা দে !
এখন দেখছি তুই দেখেছিস সেটা ? জবাব দিস নাই । জবাব দিবি কি ভাবে ?
তখন তুই তো মহা প্রস্থানের প্রস্তুতি তে মগ্ন ।
তাহের কে বলেছিলি ” তাহের শোনো যদি কিছু হয়ে যায় তবে তুমি এমন করবে ” । বলে দিয়েছিলি কি কি করতে হবে !
তাহেরটা বসে বসে এখন শুধু ভাবছে –“মানুষ এত স্পেসিফিক হয় কি ভাবে “?কথা হয়েছে আমার ।
কামরুল আর ফোন করে নাই !
তোর চলে যাবার খবরেই ওর শেষ ফোন ছিল !
রুমি,মোস্তফা রা হাউমাউ করে কেঁদে সারা ।
খালেদ টা চিৎকার করে সারা বিশ্ব ময় ছড়িয়ে দিলো তোর খবরটা !
নন্দিনী সাবরিনা খান মনে হয় আমাকে শান্তনা দেবার জন্য ফোন করে নিজেই চোখের পানিতে ভাসলো !
আবদুল হাকিম আর মেসেঞ্জারে নক দেন নাই ।
যে যার কাজ টুকু শুধু করছে । লেখা পাঠাচ্ছে ।
বেশ বুঝি আমি সেই লেখা গুলোর তাল হীন,লয় হীন সুর !
বাস!ওই টুকুই ! আর কিছু না।
সবাই !
রুদ্রটা টা দূর প্রবাসে একা থাকে । সে মেইল দিয়েছে,সে স্বপ্নে দেখেছে তোকে ।
তোকে নাকি অনেক ফ্রেস আর সুন্দর দেখেছে রেহমান রুদ্র ।
কেঁদে বালিশ ভিজিয়েছে ।
পিকলু ( মেজর ইকবাল )বলছিল – তুই নাকি যাবার বেলায় সেজদাহ এর ভঙ্গিতে চলে গিয়েছিলি !
জানতাম তুই এক অন্য মার্গে বিচরন করিস ।
জ্ঞান,গরিমা,ধারনায় আর প্রার্থনায় অন্য জগতের এক অনন্য মানুষ ছিলি তুই ।
সে কারনেই তোর এমন যাত্রা আর এভাবে তোকে ফ্রেস আর পার্থিব দেখা গেছে ।

তুই যখন লিখতে বসে পড়তি তখন আমাকে বলে বসে পরতি -”ডুব” দিলাম দোস্ত ।
আর এবার না বলেই ” ডুব”! আর এমন এক ” ডুব ” ???
ভাল্ললাগে না রে মঈন । কিছুই ভাল লাগে না ।
তুই তো জানিস গান আমার প্রিয় এক সাবজেক্ট ।
তাও শুনছি না ।
তুই ” রাত দশ টার শো ” পছন্দ করে চালিয়ে যেতে বলেছিলি !
ওটা চালাচ্ছি । কিন্তু মাঝে মাঝেই প্রচণ্ড বেসুরো হয়ে যাচ্ছে ,
প্রান পাইনা আর তাতেই তালগোল পাকিয়ে যাচ্ছে ।
মিল মত, তাল মত হচ্ছে না বলেই— পরে পরেই আমার মনে হয় প্রতিদিন ।
বললাম যে ক’দিন থেকে গান শুনছি না ।
দুই দিন থেকে কানে ভাসছে — আমার তো পথ নেই পথের আমি — শ্রীকান্ত আচার্যের গানের পংতি ।
শুনবো,খুঁজে নেব, কোথায় এই পংতি। আজ রাতে ।
আর সকলকে শুনিয়ে দেব —
পথ হারা মঈনের গল্প ।
সেই যে ম্যারাদোনা চলে গেলে পেলে গিয়েছিলেন বেলা ভিস্তায় ,
ম্যারাডোনার অন্তিম শয়নে যেয়ে বলেছিলেন —
” ডিয়ার আরমান্দ ,দেখা হবে স্বর্গে,সেখানে আমরা ফুটবল খেলবো ।”
আমরা তো ফুটবল খেলতাম না তবে আরেক শাখায় আমাদের বিচরন ছিল ।
সেটা নিয়েই না হয় আমরা আলাপে মগ্ন হবো ।
কিন্তু মঈন সে কথাটিও আমি বলতে পারছি না !
পেলের বলা কথাটিও আমি বলতে পারছি না যে —
মঈন স্বর্গে আমরা আমাদের লেখা লেখি বিষয়ে আলাপ করবো ।
কি জানি তুই না আবার আমাকে ধরে বসিস — এই পেলের কথাটা কপি করেছিস ।
মনে আছে মঈন মনে আছে,কপি তে মানে নকলে তোর ছিল যত আপত্তি !

তোর আপত্তিগুলো,তোর এই প্রস্থানের মাঝেই আপাতত বিদায় ।
তবে সে গুলো ফিরে ফিরে আসবে আমাদের মাঝে বারে বারে ।
হা আমরা ধরে রাখবো ।
ধরে রাখবো মঈন , ধরে রাখবো ।

মুসা কামাল।।
( জি এম বিন হোসেন কামাল ) ।।
সম্পাদক।।
হ্যালো জনতা ডট কম ।।

## সর্ব শেষ সংবাদ – বাংলাদেশ ।।
## দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে আরো ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা একদিনে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ।
এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল ৯ হাজার ৬৬১ জনে। ##

এই পোর্টালে প্রতিদিন পাবেন যে লেখা গুলি —
<## প্রিয় লেখক,বন্ধু মাইনুল ইসলাম ওরফে মঈন বিন নাসিরের ইন্তেকালে হ্যালো জনতা গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করছে । # # আজ(প্রতিদিনের মত )*রাত দশটার শো* তে পাবেন একটি গান । আমাদের বিনোদন পেজে । # প্রতিদিন--- "বাঙালির জাতীয়তাবাদী সংগ্রাম মুক্তিযুদ্ধে চট্টগ্রাম -লেখক বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ মাহফুজুর রহমান"। # মঙ্গলবার--- কানাডা থেকে লিখেন - নন্দিনী সাবরিনা খান । # বুধবার--- "ভ্রমন"পড়ুন।। লেখক মুহাম্মদ মনসুরুল আজম,খসরু খান এবং অন্যান্য লেখক রা লিখেন এখানে -- । ~~~ # বৃহস্পতিবার -- শুক্রবারের রান্নাঘর প্রকাশিত হয় বৃহস্পতিবার --লিখেন ফিরোজা বেগম লুনা । ~~~~ # শুক্র বার-" বৈমানিকের পাণ্ডুলিপি" লিখেন বাঙ্গালি বৈমানিক"রেহমান রুদ্র"।শুরু হোল "সোফিয়া ও পাহাড়চূড়ায় পিরামিড"-ধারাবাহিক। প্রথম অংশ চলমান । # শনিবার---আমেরিকার বাল্টিমোর থেকে ধারাবাহিক লিখেন লেখক আবদুল হাকিম। তিনি লিখবেন তাঁর নিজস্ব বানান রীতিতে । প্রতি শনিবার । # রবিবার--- " রবিবাসরীয় কবিতা" পাবেন প্রতি রবিবার । এখানে লেখক মাহবুবা ছন্দা, তাসলিম_তামিম, মেহের সরকার নিয়মিত লেখেন আর লিখবেন । # কলামিস্ট ও লেখক দেওয়ান মাবুদ আহমেদ লিখেন এখানে হরহামেশাই । # সাহিত্য পেজে পাবেন প্রখ্যাত লেখক এবং সাংবাদিক,সংগঠক দন্ত্যস রওশন এর নতুন অনুকাব্য । ~~~ # একটি হ্যালো জনতা প্রেজেন্টেশন # # হ্যালো জনতা ডট কম #

6 COMMENTS

  1. লিখাটা পড়ে অনেক খারাপ লাগছে। আল্লাহ উনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন। আমিন।

  2. বন মর্মরের চিঠি ১ এবং ২ হ্যালো জনতায় ডট কমের পেজে এখনো বর্তমান।
    একটু খুজে বের করে পড়তে পারেন যে কেউ। সম্পাদক।।

  3. স্মৃতি খুঁজে বেড়ানোর সময়ে শব্দরা আরাম করে লোকালয়ে পালিয়ে যায় … বন মর্মরের চিঠি চলুক …… কিছু শব্দে মইন ভাই থাকুক পত্রিকার পাতায় ।

    • ভাবছি — ভাবছি আমি শুধু ভাবছি তারে —– অনেক কথা অনেক স্মৃতি — হয়তবা এমন কিছুই হবে শেষে —–

      M K.
      মুসা কামাল।।

  4. লিখাটি সম্পাদক সাহেব কন্টিনিউ করেন প্লিজ। আমাদের (পাঠকের) এটাই চাওয়া। ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here