” সব পেয়েছির দেশে-২” ধারাবাহিক লিখছেন আমেরিকার বাল্টিমোর থেকে লেখক আবদুল হাকিম ।

0
49

।। মেরিল্যান্ড মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ।।

সব পেয়েছির দেশে

দুই মাস পরেই টেক্সাস থেকে উড়ে এলাম মেরিল্যান্ডে । বাল্টিমোরে । এখানে একটি কোম্পানি আছে, যাদের এই এলাকার কয়েকটি স্টেটে অনেকগুলো দোকান আছে । নাম – “ লট স্টোর “ । তা বেশকিছু বাঙলাদেশি ওখানে কাজ করে । আমারও কাজ দরকার । বিদেশের মাটিতে কয়দিন আর বেকার থাকা যায় । দেশে ছেলে রয়েছে । তাকে খরচ পাঠাতে হবে । বেশ সহজেই  আমাদের দুজনেরই ওখানে কাজ জুটে গেল । বাঙালি ম্যানেজার বেশ সহযোগিতা করলেন ।

কাজ শুরু হয়ে গেল । শুনলাম মালিক পক্ষ জুইস, মানে ইহুদি । ইহুদি সম্পর্কে এতদিন সুধু শুনেই এসেছি । কোন ধারনা নেই । চোখেও দেখিনি । মনের ভিতর খচখচ করতে লাগলো । কি জানি কি হয় । নামাজ পড়া নিয়ে একটা দুশ্চিন্তায় পড়লাম । সকাল থেকে রাত পর্যন্ত একটানা কাজ । প্রথম দু’একদিন কাজা করতে হল । পরে জানলাম পিছনে ব্রেকরুমের পাসে ব্যবস্থা আছে । ব্রেকরুম বলতে আসলে কিছু নেই । স্টক-রুমের বাক্স প্যাটরার একপাসে ম্যানেজ করা হয়েছে । যার ইচ্ছে ওখানে নামাজ পড়তে পারে । তবে লাঞ্চ, নামাজ, যাই করোনা কেন, নির্ধারিত ত্রিশ মিনিট । কিন্তু ইহুদিদের দোকানে নামাজ পড়তে কোন সমস্যা হয় কি না আবার, – না । অনেকের দেখাদেখি আমিও বাথরুমে ওজু সেরে নিয়ে নামাজ পড়ে নিলাম । তবে ওই ত্রিশ মিনিটে নামাজ আর খাওয়া, ঝটপট করেই সারতে হয় । নাকে মুখে যা’কে বলে আর কি ।

আমার প্রথম ডিউটি পড়েছিল গেটে । দোকানের সামনে বারান্দায় কিছু মাল দেয়া থাকে, ওগুলো তদারকি করতে হবে, চোরে যেন না নিতে পারে । কাস্টমারের ব্যাগ চেক করে একটা টোকেন নাম্বার দিতে হবে । ওই ব্যাগগুলো যতক্ষন পর্যন্ত কাস্টমার ফিরে না যায়, দেখে রাখতে হবে । তারপর ঠিক ঠিক ভাবে নাম্বারের সাথে মিলিয়ে ব্যাগ ফেরত দিতে হবে । ব্যাগ নিয়ে ভিতরে ঢোকা চলবে না । আমেরিকাতে যে এতো চোরের উপদ্রব, তা এদেশে না এলে জানতাম না । যাক – চোর প্রসঙ্গে আগে একটি ধারাবাহিক “ এ পারেতে যত সুখ “ এ অনেক বর্ননা করেছি । এখানে আর না ।

হঠাত হন্তদন্ত হয়ে ছুটে এলেন ম্যানেজার ইউসুফ সাহেব । আমার কাছে এসে বললেন, মালিক এসে গেছে । খোদ মালিক । হাল সাহেব । সোজা হয়ে দাঁড়ান । ঢোকার সাথে সাথে গুড মর্নিঙ বলবেন । আসে পাসের সব কিছু গোছগাছ করতে থাকেন । ঝড়ের মত কথাগুলো বলেই অন্যদিকে চলে গেলেন । আমিও রেডি । চাকরিটাকে টিকিয়ে রাখতে হবেতো – । পারকিঙ লটে বেস লাগজারি একটা গাড়ি এসে দাঁড়ালো । এক রাসভারি ভদ্রলোক গাড়ি থেকে নেমে এদিকে হেটে আসছেন । বয়স ষাটোর্ধ হবে । মুখে ফ্রেঞ্চকাট দাড়ি । মাথায় ক্যাপ । বেস নাদুস নুদুস চেহারা ফিগার । চেহারায় একটা আভিজাত্য বিদ্যমান । এগিয়ে আসতেই কাচের দরজাটা খুলেদিয়ে বললাম, গুডমর্নিঙ । উনি গুডমর্নিঙ বলেই করমর্দনের জন্য হাতটা বাড়িয়ে দিলেন । আমিও সাথে সাথে হাত বাড়িয়ে করমর্দনটা সেরে ফেললাম । – হাউ আর ইউ ? আমি বললাম – আই এম গুড । – ভেরি গুড । বলেই আমার মুখের দিকে একবার তাকালেন । তারপর ভিতরে এগিয়ে গেলেন ।

যতক্ষন ভদ্রলোক দোকানে ছিলেন, আমরা সবাই তটস্থ ছিলাম । প্রায় ঘণ্টাখানেক পর উনি ফিরে যাবার জন্য ফিরে এলেন । পিছনে ম্যানেজার ইউসুফ সাহেব । হাল সাহেব  আমার কাছে এগিয়ে এসে আমার নাম জিজ্ঞেস করলেন । আমি আমার নাম বললাম । – কেমন লাগছে আমেরিকা, কাজ কেমন লাগছে, তাও জিজ্ঞেস করলেন । আমি খুশি মনেই তার সব কথার উত্তর দিলাম । যাবার সময় করমর্দনের জন্য আবার হাতটি বাড়িয়ে দিলেন । – বললেন, উইস ইওর গুড লাক । থ্যাঙ্ক ইউ । আমি বললাম মাই প্লেজার । ভেরি নাইস টু মিট ইউ । মনে হল, আমাকে নিয়ে ম্যানেজারের সাথে তার কিছু কথাবার্তা হয়েছে । একজন ইহুদির সাথে এটাই ছিল আমার প্রথম সাক্ষাত ও করমর্দন । – ( চলবে )

( লেখাটিতে ঈ ঊ ণ ং এই চারটি অক্ষর ব্যবহার করা হয়নি । শ কম ব্যবহৃত হয়েছে )

লেখক- আবদুল হাকিম ।।

লেখক লিখেন তাঁর নিজস্ব বানান রীতিতে।- সম্পাদক।।

 

# আপনাদের আরো পড়ার সুবিধার্থে আমাদের hellojanata APP ডাউন লোড করে নিন গুগল প্লে থেকে ।
Android Apps Link:-

https://play.google.com/store/apps/details?id=hello.janata&hl=en&gl=US
———–
এই পোর্টালে যারা লিখে্ন নিয়মিত —

# পড়ুন #

# প্রতিদিন— “বাঙালির জাতীয়তাবাদী সংগ্রাম মুক্তিযুদ্ধে চট্টগ্রাম -লেখক বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ মাহফুজুর রহমান”।
# বুধবার— “ভ্রমন”পড়ুন।। লেখক মুহাম্মদ মনসুরুল আজম , খসরু খান এবং অন্যান্য লেখক রা লিখেন এ খানে — । ~~~
# বৃহস্পতিবার — শুক্রবারের রান্নাঘর প্রকাশিত হয় বৃহস্পতিবার –লিখেন ফিরোজা বেগম লুনা । ~~~~
# শুক্র বার-” বৈমানিকের পাণ্ডুলিপি” লিখেন বাঙ্গালি বৈমানিক”রেহমান রুদ্র”।শুরু হোল “সোফিয়া ও পাহাড়চূড়ায় পিরামিড”-ধারাবাহিক। আজ প্রথম অংশ।
# শনিবার—আমেরিকার বাল্টিমোর থেকে ধারাবাহিক লিখেন লেখক আবদুল হাকিম। তিনি লিখবেন তাঁর নিজস্ব বানান রীতিতে । প্রতি শনিবার ।
# রবিবার— ” রবিবাসরীয় কবিতা” পাবেন প্রতি রবিবার । এখানে লেখক মাহবুবা ছন্দা, তাসলিম_তামিম, মেহের সরকার নিয়মিত লেখেন আর লিখবেন ।
# কলামিস্ট ও লেখক দেওয়ান মাবুদ আহমেদ লিখেন এখানে হরহামেশাই ।
# সাহিত্য পেজে পাবেন প্রখ্যাত লেখক এবং সাংবাদিক,সংগঠক দন্ত্যস রওশন এর নতুন অনুকাব্য । ~~~
# সামনেই যে লেখকরা তাঁদের লেখা আমাদের এখানে নিয়মিত দেবেন বলে কথা দিয়েছেন তাঁরা হলেন — মঈন বিন নাসির-(প্রকাশিত)
,
নন্দিনী সাবরিনা খান (কানাডা থেকে)তিনি লিখবেন প্রতি মঙ্গলবার —

হ্যালো জনতা ডট কম তাঁর লেখা লেখির ভুবনে তাঁদের স্বাগতম জানাচ্ছে।

# একটি হ্যালোজনতা প্রেজেন্টেশন #

।। হ্যালো জনতা.কম ।।

বলাই ।।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here