আল্লায় রাজকন্যারে মন দিছে আর হে আমাগো দালান দিছে।

0
149

শেখের বেটি রাজার বেটি – আমাগের রাজকন্যা – শেখ হাসিনারে আল্লায় মন ডা দেছে আর হে আমাগেরে দালান দেছে -বলতে বলতে কেঁদেই ফেললেন বয়ো বৃদ্ধা মহিলা ।
কেউ বললেন আমরা তো বন্দরের ভাঙ্গা ঘরে আর পথের ধারে থাকতাম আবার
বললেন কেউ কেউ আগে তো রাস্তার পাড়ে ঝুপড়িতে থাকতাম, দুয়োর নাই ,জানলা নাই ,কুত্তায় আর ছাগলে হাড়িতে মুখ বাদায়ে খাইয়া যাইত , কি যে একটা সময় যে ছিল , তখন ঘর ভাড়া নেওয়ার তাহা [ টাকা] পাইতাম কই ?
ভাত খাওনের তাহা[ টাকা ] যোগাড়েই দিন শেষ । আমাগো সেই দিনগুলা এবার বদলায় দেচে শেখের বেটি ।
ছোট্ট এক শিশু দৌড়ে এসে বললো’স্যার আগে বই-খাতা জামা কাপুর ভিজ্যা যাইতো এহন আর ঝড় আর বইন্নায়ও কিছু ওইবো না।

গতকাল পেয়েছে উপহার ,উপহারের ঘরগুলোতে কেমন কাটল প্রথম রাত ছিন্নমূল আর বাস্তহারা সেই মানুষগুলোকে যা দেখলাম আর বুঝলাম — আরে শিশু বয়স্ক আর সবার মুখে যেন খুশির ফোয়ারা আর আনন্দের সুবাতাস মাখা হাসির ঝর্ণা ধারা ।

যারা কখনো সামান্য বাশের ঘরের কথা ভাবে নাই ,তারাই পেয়েচে একটুখানি জমি তার উপরে আবার পাকা দালান[ সেমিপাকা দালান] !
এরা কিন্তুসরকার চেনে না! দল চেনে না। এরা জানে রাজা আসে আর রাজা যায় ।
মুংলা থেকে কাছেই জায়গাটার নাম পাকখালি , এখানেই এসেছিলাম বিস্তীর্ণ সেই সরকারের খাস জমিতে।
সেখানেই পেলাম উপরের বর্ণনা লেখার রসদ!

এই সুবিশাল মাঠ কি এখানে ছিল ওদের বুকে টেনে নিতে ? এতটুকু জায়গা করে দিতে ?
উপহার পেয়েছে তারা তাদের শেখের বেটির কাছ থেকে জায়গা আর ঘর ?
একি সেই শেকড়ের সন্ধান পাওয়া ?
মনে হোল যেন আজ এখানে পঞ্চাশ টি পরিবারই শুধু নয় —
এমন হাজার হাজার পরিবার যেন বুক উঁচিয়ে বলতে পারে — এ মাটি আমার, এইদেশ আমার, এ আমার মুক্তিযুদ্ধের সোনা ঝরা ফসল ।

সারা দেশের সাথে তাল মিলিয়ে এক যোগে বাগেরহাট জেলার ৯ টি উপজেলায় ভূমিহীন দের জন্যে ৩শ ৩৮ টি ঘর নির্মান ও
হস্তান্তর সম্পন্ন করেছে প্রশাসন।
ওদিকে চার শত তেত্রিশ টি এমন ঘর আরও প্রস্তুতের পথে ! মনে যেন হয়—- এ যেন ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কিছু ছিন্নমূল মানুষের এক স্বপ্ন গুচ্ছ !
ঠিকাদার নয় ,প্রশাসনের সরাসরি তত্তাবধানে তৈরি ঘর গুলো তৈরি হয়েছে মাত্র দুই মাসে । তারও আগে খাস জমির দখলদার দের হঠাতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে প্রশাসনের – এমনি জানা গেল । এ বিষয়ে শক্ত অবস্থান ছিলেন এলাকার এম পি,মুক্তিযোদ্ধা গন ,ডি সি মহোদয় থেকে , রাজনৈতিক নেত্রীবৃন্দ [আ লীগ ]আর একদম নিচের কাতারের সরকারী কর্মচারী গন — কে নয় ?

আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় ‘ অশ্রায়নের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ শ্লোগানকে সামনে রেখে বাগেরহাট জেলার
সদরে ৫২ টি,কচুয়ায় ৩০টি,চিতলমারীতে ১৭ টি, মোল্লার হাটে ৩৫ টি ফকিরহাটে ৩০টি,মোংলায় ৫০ টি,রামপালে ১০টি মোড়েলগঞ্জে ৬টি,এবং সিডর
খ্যাত এলাকা শরণখোলায় ১শ ৯৭ টি ঘর নির্মান করা হচ্ছে।
আগের ৩শ ৩৮ টি জমির দলিল সহ হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানা গেল ।বাকী গুলো যথা সময়ে হস্তান্তর করা হবে ।
একটু সহানুভুতি যেন কিছু মানুষের সারা জীবনের স্বপ্নের বাইরের হাতছানি ।
বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য শত শত মানুষ আজ আল্লার দরবারে হাত তুলেছে !
হাত পেতেছে ভুখা,নাঙ্গা আর পথের মানুষ মহান আল্লাহর ঘরে ।এক ঘর আর প্রতি ঘর থেকে যাচ্ছে সেই মোনাজাত ওই সেই আল্লার ঘরে !
একটি পরিবারে পাঁচ সাতজন করে লোক- তাতে প্রতিঘরে বারো চৌদ্দ খানা হাত প্রার্থনা করছে সৃষ্টিকর্তার দরবারে।
দীর্ঘ্জীবি হোক এই দোয়ার রব।
পৌঁছে যাক মহান আল্লা রাব্বুলের দরবারে ।

—————– — পড়ুন — প্রতিদিন সকালে ~ এক নজরে সব খবর, ♥হেডলাইন বিশ্বময় ♥

——- * বৈমানিকের পাণ্ডুলিপি* ধারাবাহিক লিখছেন রেহমান রুদ্র। একজন বাঙ্গালী বৈমানিক।

# প্রতি শুক্রবার যথারীতি #

~এখন চলছে * বৈমানিকের পাণ্ডুলিপি*-৫ – * হটাৎ করে মালদ্বীপ *– ধারাবাহিক লিখছেন রেহমান রুদ্র। ——-

~ সামনের শুক্রবার পাবেন * বৈমানিকের পাণ্ডুলিপি*-৬- * উত্তর মেরুর ভাবনা * -ধারাবাহিক লিখছেন রেহমান রুদ্র। ——-।।

♥মাস্ক–মাস্ক– মাস্ক ।। মাস্ক– মাস্ক– মাস্ক ।। ♣~~ভ্যাকসিন নিলেও মাস্ক পরতে হবে। সকলেই মাস্ক ব্যবহার করুন,একমাত্র মাস্ক ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা করোনাকে দুরে রাখতে পারি~~♣ @@ এটি’হ্যালো জনতার’একটি জনসচেতনতা মুলক প্রচারনা।

’হ্যালো জনতা.কম।।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here