Padma bridge :এগিয়ে আসছে পদ্মা সেতু’র উদ্বোধন এর দিন ক্ষন।পদ্মা সেতু কি প্রভাব ফেলবে এ অঞ্চলে ?

1
91

অবশেষে এগিয়ে আসছে বাঙ্গালি’র স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিনক্ষন । আজ পহেলা জুন । আজ শুরু হল উদ্বোধনের দিনের কাউন্ট ডাউন । আর মাত্র ২৪ দিন বাকী । এমাসের ( জুন ২০২২) ২৫ তারিখে উদ্বোধন করা হবে পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে মানুষের চলাচল । বাঙ্গালি’র স্বপ্নের এই সেতুকে ঘিরে তাই জল্পনা কল্পনা হচ্ছে ।অনেকের মনেই প্রশ্ন – পদ্মা সেতু কি প্রভাব ফেলবে এ অঞ্চলের অর্থনীতিতে । এ নিয়ে সারা দেশে তো বটেই , বিদেশেও চলছে আলোচনা । আর বাংলাদেশের দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলে চলছে আলোচনা আর দেখা যাচ্ছে জন মানসে এক নব জাগরন । আজ (১/৬/২০২২) হতে পারে পদ্মা সেতুর প্রথম আলোর খেলা । জ্বলতে পারে বৈদ্যুতিক বাতি ।

অনেক বাধা বিপত্তি ছিল ,ষড়যন্ত্র ছিল , ছিল তুচ্ছ তাচ্ছিল্য ! সব বাধা আর কাঁটা ডিঙ্গিয়ে একটি বিষয় আলোচিত বেশ , সেটি হল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়োচিত সিধান্ত । পদ্মা সেতু বিষয়ে তাঁর মনোভাব অনেক আগে থেকেই পরিস্কার ছিল । সে কারনে আর এমন একটি স্বপ্ন পুরনের কারনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবশ্যই সাধুবাদ পাবেন । আর হা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২৫ তারিখে উদ্বোধন করবেন’পদ্মা সেতু’র ।

দেখা যাক পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পরে দেশে কি প্রভাব ফেলবে ! দেখা যাক এ অঞ্চলেই বা কেমন হবে সেই প্রভাব । আর আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এর প্রভাব পড়বে কি না ?

——————-
ফিচার গ্রুপ —
## আগামী ৩ জুন শুক্রবার পাবেন
সিসটিন চ্যাপেলের দেওয়ালে বা ছাদে
মাইকেলএঞ্জেলো’র আঁকা ছবি গুলি —

আর —– সামনে ৭ জুন পাবেন
## অনাদিকালের যুদ্ধ – বনবিবি আর দক্ষিন রায়
সুন্দরবনের উপাখ্যান ।
ম ম রবি ডাকুয়ার একটি ফিচার ।

ফিচার গ্রুপ ।
———————

hellojanata.com
# দেশের ভেতরে #
# পদ্মা সেতু বাংলাদেশের জিডিপি’র হার বাড়িয়ে দেবে ১ দশমিক ২৩ শতাংশ ।
# বাংলাদেশের দক্ষিন -দক্ষিন পশ্চিমাংশ এলাকায় জিডিপি বাড়বে ২ দশমিক ৩ শতাংশ ।
# বাংলাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় আসবে যুগান্তকারী এক পরিবর্তন ।
বাংলাদেশের দক্ষিন আর দক্ষিন পশ্চিমাংশের সাথে সকল স্থানের যোগাযোগ ব্যবস্থায় বেঁচে যাবে অনেক সময় ।
# দক্ষিনের কাঁচা বাজারের এবং ওই এলাকার উৎপাদিত পণ্যের সামগ্রী যেতে পারবে সহজেই সারা দেশে । দক্ষিনের উৎপাদনকারীরা পেতে পারেন রাজধানী ঢাকায় আর সারা দেশেই তাঁদের পণ্যের বাজার ।
# পদ্মা সেতুর ওপারে শুরু হতে পারে নতুন কর্ম সংস্থান।কমে যাবে বেকারত্ব । গড়ে উঠবে নতুন কল কারখানা, শিল্প অঞ্চল । সে কারনে জমির দামও বেড়ে যাবে অনেক । এটি গত কয়েক বৎসর জুড়েই পরিলক্ষিত হচ্ছে ।
# মানুষের জীবন প্রধানতম বিষয় । পদ্মা সেতু হওয়ার ফলে সেতুর পশ্চিম এলাকায় জীবন যাত্রার মান বেড়ে যাবে ।
# বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পে নতুন মাত্রা আসবে ।
# দেশের ভেতর বাণিজ্যিক সমতা আসবে ।
# দেশের রাজনীতিতে বিশাল পরিবর্তন হবে । বিশেষত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবং আওয়ামী লীগের মুখ উজ্জ্বল হবে সারা দেশেই । জনগন খুশী হবে । বিশেষত দক্ষিণের মাঠে এর প্রভাব দেখা যেতে পারে সামনের নির্বাচনে এবং রাজনীতিতে ।

# আঞ্চলিক #

# নেপাল,ভারত আর ভুটান পদ্মা সেতু ব্যবহারে উৎসাহি হবে । তারা মংলা বা চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহার করবে । ফলে বাংলাদেশের কোষাগারে জমা পড়বে অর্থ ।
# দেশের ভেতরে পণ্য আমদানিতে বেঁচে যাবে অনেক সময় । রফতানিও হবে সহজেই । এতে আর সবের মতই সময় বাঁচবে অনেক ।
# অনেক দেশের সাথেই বাণিজ্যের দরজা খুলে যাবে ।
# ভারতে চিকিৎসার জন্য যারা যাবেন তাঁদের যাত্রা সহজ হবে । শেষ হবে পথের ক্লান্তি ।
# ভারত , নেপাল , ভুটান ব্যবসা ক্ষেত্রে সুবিধা পাবে ।
# যোগাযোগের মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়াতে অনেক বিনিয়োগকারী এ দেশে বিনিয়োগে উৎসাহি হবেন । তাতে গড়ে উঠবে আরো কল কারখানা বা শিল্প এলাকা ।
# নেপাল,ভুটান বা ভারতে বাণিজ্য সহজ হবে ।
# পদ্মা সেতুর প্রভাবে পাশের তিন দেশের অর্থনীতিতে প্রভাব পড়বে অনেক । তাদের পর্যটন শিল্পে সে প্রভাব লক্ষ্য করা যাবে ।

# অন্যান্য দেশ

# অনেক দেশ পদ্মা সেতুতে বাধার সৃষ্টি করেছিল । বিশেষত আমেরিকা, বিশ্ব ব্যাংক , জাপানের ঢাকাস্থ এমব্যাসি – মোটকথা সকল বিরোধিতা কারীরা সকলেই লজ্জা পাবেন ।
# বিদেশী বিনিয়োগ কারিদের যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পর্কে অনেকদিনের মন্তব্য আর চিন্তা ভাবনা বদলে যাবে । ফলে তারা বিনিয়োগে আসবে ।

পদ্মা সেতু নিয়ে সরকার বিদেশে এবং বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারের দিকে লক্ষ্য রাখবে । ফলে বিদেশিদের কাছে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বৃদ্ধি পাবে বহুলাংশে ।

আগামী ২৫ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে সেতুটির উদ্বোধন করবেন । সকল মন্ত্রী গন , রাজনৈতিক নেতাগন , ঢাকাস্থ কূটনীতিকগণ , দেশী বিদেশী সংবাদ কর্মী দের ইতিমধ্যে আমন্ত্রন পত্র দেওয়া হচ্ছে । তারা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রোটকল অনুযায়ী থাকবেন বলেই আশা করা যাচ্ছে । এ ছাড়া থাকবেন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মী রা ।
আজ ( ১ জুন )পদ্মা সেতুর আলোক পরিক্ষা করা হবে বলে গত কাল জানা গেছে ।

পদ্মা সেতুর দুই প্রান্তে দুইটি জমায়েত অনুষ্ঠিত হবে । প্রধানমন্ত্রী সেতু উদ্বোধন করে মাওয়া প্রান্তের গনজমায়েতে বক্তব্য রাখবেন । উদ্বোধনের দিনে রাতের বেলা জ্বালানো হবে সেতুটির আলোক সজ্জা । রাতে আতশ বাজি রাঙ্গিয়ে দেবে পদ্মা পাড়ের মানুষের মন । টেলিভিশনে বা বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম দখল করে নেবে বাঙ্গালির স্বপ্নের সেতু এই পদ্মা সেতু

## বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ##

এর পর বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দুই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহানা গাড়ি করে পুরো সেতুর মাওয়া প্রান্ত থেকে জাজিরা প্রান্তে যাবেন । তারপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাজিরার গন জমায়েতে বক্তব্য রাখবেন ।
এভাবেই শেষ হবে সকল ষড়যন্ত্র । খুলে যাবে এক নতুন দিগন্ত ।
আর সে সময়েই খুলে যাবে চলাচলের জন্য বাঙ্গালির স্বপ্নের সেতু ‘ পদ্মা সেতু !! ‘

ডেস্ক থেকে ।
হ্যালো জনতা ডট কম ।
hellojanata.com .
হ্যালো জনতার ব্লগ সাবস্ক্রাইব করুন।।
hellojanata.com —
https://hellojanata350.blogspot.com–

1 COMMENT

  1. সব কথা পছন্দের মাঝে একটি কথা খুব পছন্দ হল যে — লজ্জা পাবেন তারা! ( আন্তর্জাতিক).
    কিন্তু লজ্জা কি আছে তাদের?
    ওরা কি মানুষ? রাজাকারের দল ওরা।
    সুমন হক।ঢাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here