Padma Setu:পদ্মা সেতুতে রাজনৈতিক ভাবে কতখানি এগিয়ে যাবে আওয়ামী লীগ ?

0
112

পদ্মা সেতু উদ্বোধন হবে আগামী ২৫ জুন । সেতুটি খুলে যাবে সেদিনই । পদ্মা সেতু জনগনের জন্য খুলে গেলে বাংলাদেশের দক্ষিন – দক্ষিন পশ্চিমাংশের ১৯ টি জেলা প্রভাবিত করবে এই সেতু । আসবে উচ্ছাস,আসবে সমৃদ্ধি তাতে বদলে যেতে পারে পুরো বাংলাদেশের চিত্র । বাস্তবতা এটি । সেক্ষেত্রে আর একটি প্রশ্ন চলছে সকলের মাঝেই । পদ্মা সেতু খুলে গেলে , জনগন সেটি চোখে দেখলে , উপলব্ধির সীমানা পূর্ণ হলে , কতখানি উজ্জীবিত হবে আওয়ামী লীগ আর কতটুকুই বা প্রভাবিত হবে আওয়ামী লীগের রাজনীতি ?

হা, পদ্মা সেতু নিয়ে ভীষণ উজ্জীবিত আওয়ামী লীগ । সমর্থক থেকে শুরু করে তৃণমুল হয়ে নেতা পাতিনেতা,জেলা নেতা এমনকি বড় বড় নেতা , মন্ত্রী সবার মাঝেই প্রানের উচ্ছাস ,উৎসাহ উদ্দীপনা চোখে পড়ার মতই । এর পরিধি এবার বেড়ে যেতে পারে । এমন ভাবনা কাজ করছে সকল রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকেই ।

বৃহত্তর খুলনা অঞ্চলের মাঠে বাংলাদেশের পুরাতন এই দলটির অবস্থান আগে থেকেই ভাল ।
জাতীয় সংসদে পরিমানে বেশী তাদের সদস্য সংখ্যা । রয়েছে বৃহত্তর ফরিদপুর । সেখানে আওয়ামী লীগ অনেকটাই, তৃনমূল জুড়ে্‌ ,গ্রথিত রয়েছে তাদের শাখা প্রশাখা । ফরিদপুরে আওয়ামী লীগের দুর্গ রয়েছে । বরিশাল জেলাও চাঙ্গা হবে যদিও সেখানে আওয়ামী লীগের ভোট ব্যাংক রয়েছে বড় । আরো বাড়বে ভোট ।

মাওয়া এলাকা ঢাকা বিভাগেই রয়েছে । পদ্মা সেতু খুলে গেলে তাহলে ঢাকা বিভাগেও আসবে একটি জোয়ার । সে জোয়ার আসলে ভোটের মাঠে প্রত্যক্ষ করা যাবে বলেই রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের ধারনা । কিন্তু ঢাকা বিভাগে কি আওয়ামী লীগের ভোটের মাঠে ভোট নেই ?
আছে । ভালই আছে তবে এবার সেটি আরো বাড়বে ।

পদ্মা সেতু উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেতুর দুই তীরে প্রথমে মাওয়া এলাকায়, পরে জাজিরা এলাকায় দুইটি জনসভায় বক্তৃতা দেবেন । এখানে অনেক অনেক এবং অনেক মানুষ উপস্থিত হবেন বলেই আন্দাজ করা যাচ্ছে ।এ ছাড়াও আওয়ামী লীগের নেতা কর্মী একেবারেই কম নয় । তারাও উপস্থিত হবেন ।সেক্ষেত্রে দশ /পনের লক্ষ বা ততোধিক মানুষের জমায়েতের সম্ভাবনা একেবারেই উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না ।ঐতিহাসিক হবে এই জনসভা দুইটি সন্দেহ নাই ।
——————–
ফিচার গ্রুপ —
আর —– সামনে ৭ জুন পাবেন
## অনাদিকালের যুদ্ধ – বনবিবি আর দক্ষিন রায়
সুন্দরবনের উপাখ্যান ।
ম ম রবি ডাকুয়ার একটি ফিচার ।

ফিচার গ্রুপ ।
———————

hellojanata.com

পদ্মা সেতু ঘিরে নেগেটিভ রাজনীতি সেদিনের পরে পরেই মাঠে একেবারেই মার খাবে এমনটি হৃদয়ঙ্গম করতে পারছেন,পদ্মা সেতু নিয়ে না সুচক কথা বলা লোকগুলোর । এটিও সামনের কয়েক দিনে দেশের রাজনীতিতে ব্যপক প্রভাব ফেলতে পারে । আওয়ামী লীগ যদি উদার হয়ে ওই সব দল বা ব্যাক্তিদের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে আমন্ত্রন পত্র দেয় তবে ‘কেল্লাফতে’ হয়েই যেতে পারে । আমরা বলছি হতে পারে । কি ভাবে ‘কেল্লাফতে’ হবে তা এখুনি বলার সময় নয়। তবে আন্দাজ করা যায় যে দেশের মানুষের কাছে তাদের না সুচক রাজনীতি আরো পরিস্কার রুপ ধারন করবে । এটি সত্য । এটি আজ বাস্তবতা । ফলাফল দেখা যেতে পারে সামনের নির্বাচনে । তবে সামনের নির্বাচনে পদ্মা সেতু বিশাল আকারেই প্রচারনায় অংশ নেবে এটি এখন পরিস্কার ।
——
ফিচার গ্রুপে আপনাকে স্বাগত জানাই।

আপনি কি পদ্মা সেতুর উদ্ভোধনী নিয়ে কিছু লিখবেন বলে ভাবছেন?
টাচি, অতিরন্জিত নয়,রাজনৈতিক নয় কিন্তু হৃদয়গ্রাহী!
তো আর দেরী কেন? বসে পড়ুন।
তারপর ১৯ জুনের মধ্যে পাঠিয়ে দিন নিচের মেইলে–
hellojanata350@gmail.com.
সাথে দেবেন আপনার একটি ছবি ও আপনার বিকাশ নাম্বার।
মনে রাখুন লেখা হতে হবে টাচি, অতিরন্জিত নয়,রাজনৈতিক নয় কিন্তু হৃদয়গ্রাহী! বানান ভুল চলবে না। পছন্দ হলেই লেখকের পরিচিতি সহ আমরা পোস্ট দেবো । ৯০০ শব্দের মাঝে লেখা দেবেন । কপি নয়। ফ্রেস লেখা চাইছি আমরা দয়া করে মনে রাখুন।
ফিচার গ্রুপ।
——

hellojanata.com

আওয়ামী লীগের উপরের মহলের নেতা দের মুখে হাসির রেখা স্পষ্ট । তাঁরা মনে করেন সেতুটি উদ্বোধনের পরে পরেই সুফল মিলতে শুরু করবে । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব , দূরদর্শিতা সততা আর দেশপ্রেম নিয়ে বিশাল এক উপলব্ধি এখন ক্রমাগতই উজ্জ্বল হচ্ছে । মিডিয়ার যুগ বলেই কথা । এটি ক্রমেই দেশের সীমারেখা পেরিয়ে বিদেশে ছড়িয়ে পড়বে এটি নিশ্চিত ।

## বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা/ Prime Minister of Bangladesh Shekh Hasina ##

দেখা যায় কয়েকদিন আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি স্লোগান কে কেন্দ্র করে দেশের প্রায় সকলেই বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে । সকলেই প্রতিবাদ করেছেন । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বা তাঁর পরিবারের নিরাপত্তার দিকে লক্ষ্য রাখার বিষয়ে আমরা মনোযোগ আকর্ষণ করছি ।

আর সেই প্রতিক্রিয়া এবং প্রতিবাদ থেকেই আন্দাজ করা যায় বাঙলাদেশে এখন সকলেই প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ও তাঁর পরিবারের বিষয়ে কতখানি সচেতন। কাজেই আত্মপ্রসাদ গ্রহন না করে সবাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে এবং পাশে থাকবেন বলেই আমাদের বিশ্বাস ।

কেননা সকল দেশ এবং বিদেশের বাধাবিঘ্ন,ষড়যন্ত্র,নেগেটিভ রাজনীতি- সব দূরে সরিয়ে আজ দেশবাসিকে পদ্মা সেতুর দরজায় নিয়ে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে তো পদ্মা সেতু প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলাফল পেতেই হবে, দেখতেই হবে ।

আর সেটি হবে পদ্মা সেতুর মুল রাজনৈতিক বিজয় বলেই মনে করি আমরা । ২৫ জুনের পরে গোটা বিশ্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেখতে শুরু করবে এক অন্য চোখে । এ সমস্ত মিলিয়েই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এগিয়ে যাবে অনেক দূর ।

আনিসুল হক ।
ঢাকা ।
হ্যালো জনতা ডট কম ।
hellojanata.com .
হ্যালো জনতার ব্লগ সাবস্ক্রাইব করুন।।
hellojanata.com —
https://hellojanata350.blogspot.com–

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here